প্রতিমা বিসর্জনের মধ্য দিয়ে শান্তিপূর্ণভাবে পাঁচদিন ব্যাপী না:গঞ্জে দুর্গোৎসবের সমাপ্তি

নারায়ণগঞ্জের কন্ঠ : কোভিড ১৯ পরিস্থিতির কারণে এবারও সীমিত আকারে দেবীর আরাধনা, সিঁদুর খেলা, নাচ গান, আরতি প্রতিযোগিতা আর দেবী বিসর্জনের মধ্যে দিয়ে শান্তিপূর্ণভাবে নারায়ণগঞ্জে শেষ হলো সানতন ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বৃহত্তম ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা।

শুক্রবার ( ১৫ অক্টোবর ) বিকেল তিনটায় শহরের বিআইডব্লিউটিএর ৩নং ঘাটে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের আয়োজনে ও নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর পূজা উদযাপন পরিষদের সার্বিক তত্ত্বাবধানে প্রতিমা বিসর্জন দেয়ার আয়োজন করা হয় । তিনটায় সরকারি ও পূজা উদযাপন পরিষদের নির্ধারিত সময়ের মধ্যে প্রতিমা বিসর্জন ঘাটে প্রতিমা বিসর্জন সম্পন্ন শুরু করা হয়। পরে একে একে শহরের বিভিন্ন পূজা মন্ডপগুলো অন্তত সু-শৃঙ্খলা ভাবে তাদের প্রতিমা বিসর্জন সম্পন্ন করেন । এবারও বিজয়া দশমীতে শোভা-যাত্রা ছাড়াই বিজয়ী দশমীতে প্রতিমা বিসর্জন সম্পন্ন করা হয়।

এ ঘাটে শহরের বেশিরভাগ মণ্ডপের প্রতিমার বিসর্জন দেওয়া হয়। সেখানে প্রতিমা বিসর্জন দেখতে হাজার হাজার মানুষ জড়ো হন। এছাড়াও শহরের বাইরেও প্রতিমা বিসর্জন সম্পন্ন করা হয়। বিজয়া দশমীতে অর্থাৎ শেষ দিনের আনুষ্ঠানিকতার শুরু থেকেই নগরীর মণ্ডপে মণ্ডপে ভক্তদের ভিড় ছিলো।

কেন্দ্রীয় পূজা উদযাপন পরিষদের নির্দেশনা অনুযায়ী প্রতিমার বিসর্জনের পূর্বে শহরের রামকৃষ্ণ মিশন, আমলা পাড়া পূজা মন্ডপ, উকিল পাড়া হোসিয়ারি পূজা মন্ডপ, সাহা পাড়া পূজা মন্ডপ, নতুন নয়া মাটি পূজা মন্ডপ, বাড়ৈভোগ রাধাকৃষ্ণ মন্দিরসহ বেশে কিছু মণ্ডপে এবার নারীদের সিঁদুর খেলা হয়নি। মণ্ডপের পাশাপাশি, প্রতিমা বিসর্জনস্থল ও বিসর্জন স্থলে নেয়ার পথকে ঘিরে জেলা পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে নেয়া হয় কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা।

বিসর্জন ঘাটে নিরাপত্তার কাজে পোশাকধারী পুলিশের পাশাপাশি,সাদা পোশাকধারী পুলিশ, নৌ- পুলিশ, র‌্যাব ও ফায়ার সার্ভিস, বিআইডব্লিউটিএর ডুবুরি টিম, সিভিল সার্জনের মেডিকেল টিম সদস্যরাও নিয়োজিত ছিলেন।

নারায়ণগঞ্জ জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক শিখণ সরকার শিপন বলেন, করোনা পরিস্থিতিতে সরকারি ও পূজা উদযাপন পরিষদের নিয়মনীতি মে‌নে এবছরও ছোট পরিসরে দূর্গা পূজার আয়োজন করায় । শান্তিপূর্ণ ও উৎসবমুখর পরিবেশের মধ্য দিয়ে পাঁচ দিনব্যাপী এই দুর্গোৎসব দেবীর বিসর্জনের মধ্য দিয়ে শেষ হচ্ছে । যা বুঝিয়ে দিয়েছে ধর্ম যার যার উৎসব সবার। করোনা পরিস্থিতিতেও এবারে পুজোয় আনন্দের কোন কমতি ছিলো না।

তিনি আরও বলেন, নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগরে এবার ২১৫টি পূজা মন্ডপে শারদীয় দুর্গোৎসব অনুষ্ঠিত হয়েছে । কোন প্রকার অপ্রীতিকর ঘটনা ছাড়াই শান্তিপূর্ণভাবে পালিত হয়েছে । এতেই বোঝা যায় নারায়ণগঞ্জ একটি সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির জেলা । সকল উৎসব আমরা একসাথে উৎযাপন করে থাকি । শারদীয় দুর্গোৎসব শান্তিপূর্ণভাবে উদযাপিত হওয়ায় নারায়ণগঞ্জবাসীকে জেলা ও মহানগর পূজা উদযাপন পরিষদের পক্ষ থেকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি ।

নারায়ণগঞ্জ জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি দীপক কুমার সাহা’র সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক শিখণ সরকার শিপনের সঞ্চালনায় বিজয়া দশমী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক ( সার্বিক ) শামীম বেপারী, লেফটেন্যান্ট কর্নেল র‌্যাব-১১ সিইও তানভীর মাহমুদ পাশা, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ( ডিএসবি ) শফিকুল ইসলাম, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আরিফা জহুরা, জেলা হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের আহ্বায়ক প্রদীপ কুমার দাস, সদস্য সচিব রঞ্জিত মন্ডল, মহানগর পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি অরুণ কুমার দাস, সাধারণ সম্পাদক উত্তম সাহা, মহানগর হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সভাপতি লিটন চন্দ্র পাল, জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের যুগ্ম সম্পাদক সাংবাদিক উত্তম সাহা, কোষাধ্যক্ষ সুশীল দাস, ধর্ম ও পূজা বিষয়ক সম্পাদক কৃষ্ণ আচার্য, বন্দরের সাধারণ সম্পাদক শ্যামল বিশ্বাস, সিদ্ধিরগঞ্জ থানা কমিটির সভাপতি শিশির ঘোষ অমর প্রমুখ ।

0 0 votes
Article Rating
Subscribe
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments

আপডেট

0
Would love your thoughts, please comment.x
()
x