হোম রাজনীতি এমপি খোকা কে ফুল দিয়ে সোনারগাঁওয়ে বিএনপির ৫’শ নেতাকর্মীর জাপায় যোগদান

এমপি খোকা কে ফুল দিয়ে সোনারগাঁওয়ে বিএনপির ৫’শ নেতাকর্মীর জাপায় যোগদান

 

নারায়ণগঞ্জের কন্ঠ:

সোনারগাঁ উপজেলার পিরোজপুর ইউনিয়নের ৫ শতাধিক বিএনপি নেতাকর্মী জাতীয় পার্টিতে যোগদান করেছে। গত মঙ্গলবার রাতে উপজেলার মোগরাপাড়া চৌরাস্তাস্থিত আইয়ুব প্লাজায় স্থানীয় সংসদ সদস্য ও জাতীয় পার্টির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব লিয়াকত হোসেন খোকার রাজনৈতিক কার্যালয়ে আনন্দঘন পরিবেশে এই যোগদান অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। এসময় আব্দুর রহমান, হাজী রফিকুল ইসলাম, লতিফ সরকার ও সাব্বির হোসেনের নেতৃত্বে বিএনপির নেতাকর্মীরা এমপি লিয়াকত হোসেন খোকাকে ফুলের তোড়া দিয়ে শুভেচ্ছা জানিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে জাতীয় পার্টিতে যোগদান করেন। এসময় এমপি লিয়াকত হোসেন খোকা বলেন, আমি দীর্ঘ ৪০ বছরের রাজনৈতিক জীবনে সবসময় মানুষের মুখে হাসি ফোটানোর চেষ্টা করেছি। আমি নিজে কোন দূর্নীতি করিনি এবং দূর্নীতিবাজ ও খারাপ মানুষকে কখনো প্রশ্রয় দেইনি। আমি সোনারগাঁয়ে ব্যক্তি স্বার্থ কেন্দ্রীক রাজনীতিকে হটিয়ে উন্নয়ন ও সেবামূখী রাজনীতি প্রতিষ্ঠা করেছি। হামলা-মামলা মুক্ত ভালো পরিবেশ রাখার চেষ্টা করেছি। মানুষ যাতে শান্তিতে থাকে সেটাই হলো আমার প্রথম কামনা। মাদকের বিরুদ্ধে আমার জিরো টলারেন্সের কথা সবাই জানে। উন্নয়ন প্রসঙ্গে তিনি বলেন, সোনারগাঁয়ের উন্নয়ন করাকে আমি নিজের জন্য ফরজ বলে মনে করি। কারণ আল্লাহ তা’য়ালা আমাকে উন্নয়ন ও মানুষের সেবা করার জন্যই এমপি নির্বাচিত করেছেন। তাই মানুষের কল্যাণে নিজেকে বিলিয়ে দেয়ার মাঝেই আমি প্রকৃত সুখ খুঁজে নিয়েছি। কেননা এটাই আমার রাজনীতির মূল উদ্দেশ্য। তিনি আরো বলেন, সোনারগাঁয়ের রাস্তাঘাট, ব্রীজ, কালভার্ট, স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসা, এতিমখানা, কবরস্থান, মন্দির, চিতাশালা ও শিল্প কলকারখানা সহ সকল ক্ষেত্রে আমার উন্নয়নের ছোঁয়া লেগেছে। বিগত দিনের এমপিরা বারবার ওয়াদা করেও যেসব কাজ করেননি, আমি সেগুলো আগে করেছি। শম্ভুপুরায় ব্রহ্মপুত্র নদের উপর নবীনগর থেকে সাবদী বাজার পর্যন্ত ২’শ ১০ মিটার লম্বা একটি সেতু পাশ হয়েছে। শীঘ্রই এর কাজ শুরু হবে। এছাড়া হরিহরদী ও ভাটিবন্দর সেতুর কাজ চলছে। আমি ১টি স্কুল ও ১টি কলেজ সরকারি করেছি। স্কুল, কলেজ ও মাদ্রাসায় অসংখ্য নতুন ভবন নির্মাণ করেছি। খেলাধূলার জন্য মিনি স্টেডিয়াম করেছি। ফায়ার সার্ভিস স্টেশন, বিজয় স্তম্ভ ও মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স নির্মাণ করেছি। বর্তমানে একটি আধুনিক মানসম্মত হাসপাতাল ও কয়েকটি কারিগরি স্কুল, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে কাজ করছি। নারায়ণগঞ্জের ৫টি উপজেলার সঙ্গে তুলোনা করলে গত ৫ বছরে সোনারগাঁয়ে সবচেয়ে বেশি উন্নয়ন হয়েছে। আল্লাহ আমাকে আরেকবার কবুল করলে আমি সোনারগাঁকে শহরে রুপান্তরিত করবো। আগামীতে আরো ৩ গুন বেশি উন্নয়ন হবে ইনশাআল্লাহ। এসময় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- পিরোজপুর ইউপির প্যানেল চেয়ারম্যান ও জাতীয় পার্টি নেতা আলমগীর কবির, মজিবুর রহমান মেম্বার, মোরশেদা মেম্বার, লুৎফর রহমান তোতা প্রমুখ। অনুষ্ঠানে নারায়ণগঞ্জ জেলা জাতীয় পার্টি নেতা আজিজুর রহমান বাদল, আনিসুর রহমান রানা, সোনারগাঁ উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক পার্টি নেতা জাবেদ রায়হান, যুব সংহতি নেতা কাজী নাজমুল ইসলাম লিটু, উপজেলা ছাত্র সমাজের সভাপতি ফজলুল হক, সাধারণ সম্পাদক সেকান্দার আলী সহ জাতীয় পার্টি ও এর অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।