পেশাদারিত্বের সাথে শতভাগ সততা নিয়ে কাজ করাই হবে আমার লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য : এসপি জায়েদ

নারায়ণগঞ্জের কন্ঠ : ‘সততা মানেই সততা, শতভাগ সততা। এখানে একভাগও কমহলে সেখানে কাজ করা যায়না। পেশাদারিত্বের সাথে শতভাগ সততা নিয়ে কাজ করাই হবে আমার লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য’ বলে জানিয়েছেন নারায়ণগঞ্জের নবাগত পুলিশ সুপার (এসপি) মোহাম্মদ জায়েদুল আলম।

রোববার (২৯ ডিসেম্বর) বিকেলে পুলিশ সুপারের কার্যালয়ের সম্মেলনকক্ষে বিভিন্ন ইলেকট্রনিক ও প্রিন্ট মিডিয়ার সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় সভায় তিনি এসব কথা বলেন।    

এসপি জায়েদুল আলম আরো বলেন, স্বাধীনতা উত্তর বাংলাদেশে যারা আমরা মুক্তিযুদ্ধ দেখিনি কিংবা মুক্তিযুদ্ধ পাইনি তারা মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ কিংবা শহীদ হতে পারবোনা। তবে আমাদের জন্য একটাই সুযোগ জীবনের শেষ রক্তবিন্দু দিয়ে হলেও মানুষকে সেবা দিতে পারবো।

মানুষকে সত্য ও ন্যায় বিচার দিতে পারবো। মানুষের ন্যায় বিচারের জন্য যাতে কখনোই পিছপা না হই সেটিই আপনারা খেয়াল রাখবেন। সততার নিরানব্বই ভাগ কিংবা আশিভাগ সততা বলে কোন শব্দ নেই। সততা মানে হচ্ছে শতভাগ সততা।

সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে এসপি জায়েদুল বলেন, একসময় নাটক সমাজ পরিবর্তনের হাতিয়ার হিসেবে গণ্য হলেও আমি বলবো সাংবাদিক হচ্ছে সমাজ পরিবর্তনের হাতিয়ার। সমাজের অসঙ্গতি, ভালো-খারাপ দিক এগুলো একমাত্র সাংবাদিক তুলে ধরতে পারেন। সমাজের সংস্কার ও বিনির্মাণে সাংবাদিকদের ভূমিকা রয়েছে।

সাংবাদিকতাকে চতুর্থ স্তম্ভ হিসেবে বিবেচনা করলেও কখনো কখনো এটিই প্রথম কিংবা দ্বিতীয় হিসেবে পরিগণিত হয়। সাংবাদিকদের সহযোগিতা থাকলে দায়িত্ব পালনে পথচলা সহজ হবে বলে জানান এসপি। দায়িত্ব গ্রহণের পর মুক্তিযোদ্ধাদের সাথে প্রথম মিটিং করার পরপরই আমার দ্বিতীয় সভা সাংবাদিকদের নিয়ে।

সাংবাদিকরাই পারে সমাজের প্রকৃত সত্যটা তুলে ধরতে জানিয়ে এসপি জায়েদুল বলেন, শহীদ পরিবারের সন্তান হওয়ায় স্বাধীনতার বিপক্ষে যারা রয়েছে অর্থাৎ জামাত-শিবির কিংবা যুদ্ধাপরাধী তাদের সংগঠন নিয়ে আমার আপত্তি রয়েছে তাছাড়া অন্য যে কোন দল নিয়ে আমার কোন আপত্তি নাই।

মুক্তিযোদ্ধা এবং সাংবাদিকদের মধ্যে যাতে কোন বিরোধ কিংবা ভাগাভাগি না থাকে সেটি নিয়ে কাজ করবো। ভাগাভাগির যুগেও সব জায়গায় কিন্তু ভাগাভাগি করা যায়না। নারায়ণগঞ্জে কাজ করাকে আমি চ্যালেঞ্জ হিসেবে না দেখে আমি আমার উপর দায়িত্ব বেড়ে গেছে বলে মনে করি।

মতবিনিময় সভায় সাংবাদিকরা নারায়ণগঞ্জের নানা সমস্যা তুলে ধরে সমাধানের জন্য পুলিশ সুপারের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন। পুলিশ সুপার সেগুলো আন্তরিকভাবে সমাধানের চেষ্টা করবেন বলে জানান। 

মতবিনিময় সভায় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মনিরুল ইসলাম, মেহেদী ইমরান সিদ্দিকী, নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি রুমন রেজা, সাবেক সেক্রেটারি আবু সাউদ মাসুদ, নারায়ণগঞ্জ জেলা সাংবাদিক ইউনিয়নের (এনইউজে) সভাপতি আবদুস সালাম, সেক্রেটারি আফজাল হোসেন পন্টিসহ জেলার বিভিন্ন থানার প্রেসক্লাব এবং রিপোর্টাস ইউনিটির সাংবাদিকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।     

0 0 vote
Article Rating
Subscribe
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments

আপডেট

0
Would love your thoughts, please comment.x
()
x